মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

উপজেলা প্রশাসনের পটভূমি

বিগত ১৯৭১ সনে ১৬ ডিসেম্বর ঐতিহাসিক মহান বিজয়ের মাধ্যমে দেশ শত্রুমুক্ত হয়ে স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে বুকভরা আশা নিয়ে আপামর জনতা দেশ মাতৃকার সেবার  লক্ষ্যে এলাকার সার্বিক উন্নয়নের জন্য যখন আত্ননিয়োগ করবে ঠিক সেই মূহুর্তে উত্তাল সর্বগ্রাসী পদ্মার নদীর ভাঙ্গনে হাজার হাজার মানুষ তাদের বাড়ী ঘর পদ্মার বুকে বিলিন হয়ে যাওয়ায় বৃহত্তর ফরিদপুর জেলার বিভিন্ন স্থানে আশ্রয় নেয়। পূর্বাপর ভাঙ্গন কবলিত ০৪ টি ইউনিয়ন নিয়ে ইতোপূর্বে গঠিত গোয়ালন্দ থানা, গোয়ালন্দ মহকুমার অন্তর্ভূক্ত তথা বৃহত্তর ফরিদপুর জেলার সহিত একীভূত হয়ে প্রশাসনিক কার্যক্রম চলতে থাকে। কালের আবর্তনে মানুষের সার্বিক কল্যাণের লক্ষ্য নিয়ে জনগণের সেবা দোর গোড়ায় পৌছানোর জন্য প্রশাসন বিকেন্দ্রীকরনের ফলে দেশের প্রত্যেক থানাকে উপজেলায় উন্নীত করণের সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে বিগত ১৯৮৩ সনের ৩রা নভেম্বর এই থানা টি গোয়ালন্দ উপজেলায় উন্নীত করা হয়। পরবর্তীকালে এই ০৪ টি ইউনিয়নের মধ্যে উজানচর ও ছোটভাকলা ইউনিয়নের কিছু অংশ নিয়ে গোয়ালন্দ পৌরসভা নামে একটি পৌরসভা ১৯৯৮ সনে থেকে যাত্রাশুরু করে । ভৌগলিক দিক থেকে উত্তরে মানিকগঞ্জ ও পাবনা জেলা, পূর্বে ফরিদপুর জেলা, দক্ষিণ ও পশ্চিমে রাজবাড়ী সদর উপজেলা । এই চৌহর্দ্দী সীমানার মধ্যে গোয়ালন্দ উপজেলা অবস্থিত । বর্তমানে এই উপজেলায় ১টি পৌরসভা ০৪টি ইউনিয়ন রয়েছে। লোক সংখ্যা সর্বমোট ১,৩৮,২৫৭ জন তন্মমধ্যে ৭২,৫৭৫ জন পুরুষ ৬৫,৬৮২ জন মহিলা উপজেলার প্রশাসনিক এলাকার আয়তন ১২২ বর্গ কিলোমিটার। ঘনত্ব ৭৮৭ জন প্রতি বর্গ কিলোমিটারে । প্রশাসনের ইতিহাস সুদৃর্ঘ ঐতিহ্য মন্ডিত। বৃটিশ উপনিবেশ আমলে প্রশাসনের ভিত্তি রচিত হলেও সভ্যতার উষা লগ্ন থেকেই মানুষের সার্বিক সেবা প্রদানের গুরুত্ব প্রারাম্ভেই অনুধাবন করত: রাষ্ট্রের প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়ায় প্রশাসন কাঠামোর মধ্যে উপজেলা প্রশাসনের গুরুত্ব অপরিসীম। এ উপজেলা প্রশাসন এলাকার মধ্যে ২৮টি সরকারী অফিস ৩টি ব্যাংক,৩০টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,১৪টি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ১২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৩টি মহাবিদ্যালয়  ২টি কারিগরী মহাবিদ্যালয় রয়েছে। শিক্ষার হার ৩৪.৭৬%। দেশের অন্যান্য উপজেলার চেয়ে আয়তনের দিক থেকে অনেক ছোট হলেও এর গুরুত্ব অপরিসীম। দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের  প্রবেশদ্বার হিসেবে খ্যাত দৌলতদিয়া - পাটুরিয়া নৌ রুট দিয়ে প্রতিনিয়ত হাজার হাজার যানবাহন পারাপার হয়ে এ উপজেলার উপর দিয়ে গমনকৃত ব্যস্ততম মহা সড়ক দিয়ে চলাচল  করে। দেশ বরেন্য সম্মনিত ব্যাক্তি বর্গ এই রুটে যাতায়াত করে থাকেন। প্রশাসনের সার্বিক তৎপরতার কারণে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক অবস্থা বিরাজ করছে।